Search

#পুরানোমানুষদেরঠিককরতে

একজন সচেতন মা অথবা বাবা হিসেবে আপনার অবশ্যই জানা দরকার আপনার শিশু কোন বয়সে কোনটি করবে। আপনি যেমন এই বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে আপনার সন্তানকে বিপদের মুখে ঠেলে দিতে পারেন না ঠিক তেমনি অন্য কেউ বললো বা আপনাকে কথা শোনাবে বলেই যে চুপ করে বসে থাকবেন তা কিন্তু ঠিক নয়, আমি একটি কথা বলি এবং মেনে চলি: পুরানো মানুষদের ঠিক করতে না গিয়ে, নুতনকে ঠিক করে গড়ি। আশা করি, আমি বোঝাতে পেরেছি কি আমি বলতে চাচ্ছি, আমি যে সঠিক তা আমি বলছি না কিন্তু আমি এটা বলছি, আপনি আপনার সন্তানকে গড়ে তুলবেন যেন তার কথা সে বলে প্রকাশ করতে পারে, সে তার মতো করে বাস্তবতার সাথে মিশতে পারে। সমাজ এবং নিকটতম আপনজনেরা আপনাকে বললে, “আধিক্যেতা করো, আমাদের ও ছেলে মেয়ে আমরা মানুষ করেছি”. দেখুন তর্কে তর্ক আনে কিন্তু যদি আপনি একটু সময় করে বুঝাতে পারেন, সময় পরিবর্তিত হয়েছে, আমরা টিভি না দেখে এখন স্মার্ট ফোন দেখি ও দেখে কথা বলি।


এই যে পরিবর্তন হয়তো অনেকে বুঝে না বোঝার অভিনয় করছেন কিন্তু ক্ষতি কার হচ্ছে আপনার বা আমার! কষ্ট পাচ্ছে নিষ্পাপ শিশুরা যাদের কোনো ভাষা নেই প্রকাশ করার। বাংলাদেশে শিশুরা পিছিয়ে যাচ্ছে, জন্মগত ত্রুটি কতটা দায়ী আমার জানা নেই কারণ সঠিক তথ্য নেই, তবে আমি আমার এই ১৩ বছরের কর্মরত অভিজ্ঞতা দিয়ে দেখেছি; গত ৬ মাসে যতজন মা ও বাবা আমাকে যোগাযোগ করেছেন, বেশিরভাগ শিশুই সম্পূর্ণ ভাবে পরিবার ও পরিবেশগত কারণে পিছিয়ে, হয়তোবা মা চাকরি করেন, বাবা ও চাকরি করেন আর না হয় বাচ্চা ফোন দেখে কাটাচ্ছে, শিশুর বিকাশ বলতে বুঝেই নিচ্ছেন আলফাবেট বলতে পারবে বা ১২৩ গুনতে পারবে, পশুপাখির নাম বলতে পারবে কিন্তু এই ধারণা সম্পূর্ন ঠিক নয়। শিশুকে কখনও গল্প বলেননি কিন্তু আশা করছেন শিশুটি আপনার সাথে গল্প বলবে। আপনি সেই কথা বা কাজ আশা করতে পারেন না যেটি আপনি আপনার সন্তানকে শেখাচ্ছেন না। আপনাদের প্রতিদিনকার আচরণের মাঝেই তার বেড়ে ওঠা, শিশুকে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী করে গড়ে আপনিই তুলছেন, আপনি জেনে নিন ও জানার চেষ্টা করুন কিভাবে শিশুর বিকাশে একজন যোগ্যপেশাজীবী আপনাকে সাহায্য করতে পারে। আপনি বা আমি সব কিছু জানবো তা কিন্তু নয়; আমি যেটা জানবো না সেটা আপনার কাছ থেকে জানবো আর আপনি আমার কাছ থেকে। শিশুর যদি কোন বিশেষ চাহিদা থাকে অথবা সঠিক বিকাশে সহযোগীতা দরকার হয় তবে কেন করবেন না, আপনি যদি আপনার সৌন্দর্য্য বিকাশে সেলুন বা বিউটি পার্লার যান তাহলে শিশুর বিকাশে কেন যোগ্যপেশাজীবীর কাছে যাবেন না বা যারা যাচ্ছেন তারা গেলে ও লুকিয়ে রাখছেন আপনার সন্তানের বিশেষ চাহিদা আছে অথবা সঠিক বিকাশে সহযোগীতা দরকার হয়। “পিছনে লোকে কিছু বলে” তারা বলবে ভালো হলেও বলবে আবার খারাপে ও বলবো কিন্তু ৫ বছর উর্তীন হয়ে গেলে আপনিই বলবেন কেউ শোনার থাকবে না কারণ শিশুর দ্রুত বিকাশ হয় ৩ বছর পর্যন্ত আর ৪-৫ বছর বয়সেও সাহায্য করা যায় সঠিক বিকাশ সম্ভবকর হয় কিন্তু এর পরে খুব কঠিন হয়ে যায়, তাই এই যে শিশুর প্রথম ৩ টি বছর সময়টিকে মূল্যায়ন করুন। অনেক কিছু বললাম কষ্ট পেয়ে হলেও শিশুর বিকাশে শিশুকে সাহায্য করবেন।


https://www.youtube.com/channel/UCbl8c9Vl6K9hjcKM9zUoqQA




Tripti Podder


Early Years Expert


Uk

0 views0 comments